সোমবার , ২৫ মার্চ ২০২৪ | ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. খেলাধুলা
  4. জাতীয়
  5. দেশজুড়ে
  6. ধর্ম
  7. ফিচার
  8. বাণিজ্য
  9. বাংলাদেশ
  10. বিনোদন
  11. বিশ্ব
  12. ভিডিও
  13. মুন্সীগঞ্জ
  14. রাজনীতি
  15. শিক্ষা

আফগানিস্তানে ইসলামি বিচারব্যবস্থা কার্যকর করা হবে: তালেবান প্রধান

প্রতিবেদক
admin
মার্চ ২৫, ২০২৪ ৮:১৪ পূর্বাহ্ন
আফগানিস্তানে ইসলামি বিচারব্যবস্থা কার্যকর করা হবে: তালেবান প্রধান

আফগানিস্তানে ইসলামি বিচারব্যবস্থা কার্যকর করতে তালেবান দৃঢ়প্রতিজ্ঞ বলে উল্লেখ করেছেন গোষ্ঠীটির শীর্ষ নেতা হিবাতুল্লা আখুন্দজাদা। তিনি বলেন, তালেবান ব্যভিচারের জন্য নারীদের প্রকাশ্যে পাথর ছুড়ে মারাসহ ইসলামি ফৌজদারি বিচার ব্যবস্থা কার্যকর করতে বদ্ধ পরিকর।

এক অডিও ক্লিপে তালেবানের সুপ্রিম লিডার বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হলো শরিয়া এবং আল্লাহর হুদুদ [আইন] কার্যকর করা’। তালেবানের
অন্য কর্মকর্তারা বলেন, এটি তার সর্বশেষ বক্তৃতা থেকে নেয়া। তবে কোথায় তিনি এসব কথা বলেছেন তা জানা যায়নি। এমনকি আফগানিস্তানে তালেবান ক্ষমতা গ্রহণের পরও তিনি প্রকাশ্যে আসেননি। খবর ডয়চে ভেলে ও ভয়েস অব আমেরিকার

খবরে বলা হয়েছে, প্রকাশ্যে না আসলেও ধারণা করা হয় হিবাতুল্লা আখুন্দজাদা আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলে কান্দাহার শহরে বাস করেন। তালেবানের এই ঐতিহাসিক জন্মস্থান এবং রাজনৈতিক সদর দফতর থেকে তিনি খুব কমই বাইরে বের হন।

আরও পড়ুন: গাজায় ত্রাণ দিয়ে ‘সত্যিকার অর্থে প্লাবিত’ করার সময় এসেছে

হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা কান্দাহার থেকে তালেবান সরকারকে কার্যত নিয়ন্ত্রণ করছেন। তালেবান প্রধান তার বক্তৃতায় বলেন, ‘আপনারা এটাকে নারীর অধিকার লঙ্ঘন বলতে পারেন- যখন আমরা প্রকাশ্যে ব্যভিচার করার জন্য তাদের পাথর নিক্ষেপ করি বা বেত্রাঘাত করি, কারণ এসব আপনাদের গণতান্ত্রিক নীতির সাথে সাংঘর্ষিক।’

পশ্চিমা নেতাদের কটাক্ষ করে আখুন্দজাদা বলেন, ‘আপনারা যেমন সমগ্র মানবতার মুক্তির জন্য সংগ্রাম করছেন বলে দাবি করেন, আমিও তাই করি। আমি আল্লাহর প্রতিনিধিত্ব করি এবং আপনারা শয়তানের প্রতিনিধিত্ব করেন।’

আরও পড়ুন:  গাজায় রমজানের রাতে ৮০ জনকে হত্যা, নিহত সাড়ে ৩১ হাজার

তিনি পশ্চিমা মানবাধিকার মূল্যবোধ এবং নারীর স্বাধীনতার সমালোচনা করে বলেন, তালেবান ধর্মীয় আলেমরা আফগানিস্তানে পশ্চিমাদের এবং তাদের গণতন্ত্রের রূপকে অবিরাম প্রতিরোধ করে যাবে। এই আলেমদের জন্যই এই দেশ থেকে এমন গণতন্ত্র উচ্ছেদ করা সম্ভব হয়েছে।

তালেবান ২০২১ সালের আগস্টে আফগানিস্তানের ক্ষমতায় ফিরে আসে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন বিদেশি সেনারা আফগান ছাড়ার সাথে সাথেই তৎকালীন আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকারের পতন ঘটে এবং তালেবান ক্ষমতা দখল করে। প্রায় ২০ বছর পর আফগানিস্তান ছাড়ে বিদেশি সেনারা।

সর্বশেষ - দেশজুড়ে