শনিবার , ৪ মে ২০২৪ | ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. ! Без рубрики
  2. অন্যান্য
  3. অপরাধ
  4. আমাদের পরিবার
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. দেশজুড়ে
  8. ধর্ম
  9. ফিচার
  10. বাণিজ্য
  11. বাংলাদেশ
  12. বিনোদন
  13. বিশ্ব
  14. ভিডিও
  15. মুন্সীগঞ্জ

সিদ্ধিরগঞ্জ চৌধুরী বাড়ি আল মদিনা মসজিদের পানি বিতরণে সেলিম ভূইয়া’র বাধা প্রতিবাদ করায় কাজী মহসিন এর উপর হামলা ও বাড়িঘর ভাংচুর

প্রতিবেদক
admin
মে ৪, ২০২৪ ১১:০৩ অপরাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জ শহরের সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন নাসিক ৮ নং ওয়ার্ড চৌধুরী বাড়ি বৌ বাজার এলাকায় অবস্থিত আল মদিনা মসজিদ এর এলাকাবাসী ও মুসল্লীদের দান অনুদানে নব নির্মিত ডীপ টিউবওয়েল এর পানি এলাকাবাসীর প্রয়োজনে কমিটির সকলের সন্মতিতে বিতরণের প্রস্তাব থাকলেও হাজী সোহরাব উদ্দিন ভূইয়ার ছেলে মসজিদ কমিটির মুতাওয়াল্লী সেলিম ভূইয়া (৪৪) ও হাজী আব্দুল রব প্রধান এর পুত্র মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক শামীমের(৫৫) বাধা।

এ বিষয়ে প্রতিবাদ করায় মৃত কারী মোহাম্মদ আলী সাহেব এর পুত্র মসজিদ কমিটির প্রধান উপদেষ্টা কাজী মোঃ মহসিনের(৫৫) উপর হামলা এবং বাড়ি ঘর ভাংচুর করে বলে এমনটাই অভিযোগ উঠে এসেছে।

ঘটনার সূত্রে জানা যায় যে, গত ২ রা মে বৃহস্পতিবার বাদ এশা মসজিদের ভিতর কমিটির সদস্যদের উপস্থিতিতে আলোচনার বৈঠকে বসেন। এলাকাবাসী নিয়মিত ওয়াসার পানি না পাওয়ার কারনে ও বর্তমানে গরমের কারনে এলাকাবাসীর পানি সমস্যা থাকায় সকলের সর্বসম্মতিক্রমে মসজিদের ডীপের পানি এলাকাবাসীর ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিলে এ সময় সকলের সিদ্ধান্তকে উপেক্ষা করেন সেলিম ভূইয়া ও শামীম।

এ সময় উপস্থিত সকলের সামনে সেলিম ভূইয়া ও শামীম এর সাথে কাজী মহসিন এর সাথে বাকবিতন্ডতা ও হাতাহাতি শুরু হয়। এলাকাবাসী ও মুসল্লীদের সহযোগিতায় পরিস্থিতি শান্ত হলে উভয় পক্ষ মসজিদের স্হান ত্যাগ করে নিজ নিজ বাড়িতে চলে যান।

কিন্তু ঘটনার বিষয়ে উভয় পক্ষ সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানাপুলিশ ঘটনাস্থলে এসে উভয়কে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়ে যায়। কাজী মহসিন শান্ত হলেও সেলিম ভূইয়া ও শামীম মনে ক্ষোভ চেপে রেখে আইনের তোয়াক্কা না করে পরের দিন ৩রা মে শুক্রবার জুম্মার নামাজে কাজী মহসিনকে কমিটির উপদেষ্টা হতে নাম বাদ দিয়ে কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লার নাম ঘোষণা দেন।

এ সময় পরিস্থিতি উত্তেজিত হয়ে পড়ে। নামাজ শেষে কাজী মহসিন বাড়ী চলে গেলে সেলিম ভূইয়া ও শামীম তাদের দলবল নিয়ে কাজী মহসিন এর বাড়িঘর ভাংচুর করে এবং প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে যায় বলে এমটাই অভিযোগ গণমাধ্যমের সামনে তুলে ধরেন ভুক্তভোগী কাজী মহসিন।

ঘটনার বিষয়ে মসজিদ কমিটির সভাপতি শেখ রমজান এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, সেলিম ভূইয়া ও শামীম এলাকাবাসীকে পানি দিতে না করার কারণে মুলত তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব। ওপর দিকে আমাদের কমিটির সাথে কোন আলোচনা বা সিদ্ধান্ত না নিয়ে কাজী মহসিন কে উপদেষ্টা হতে নাম বাদ দেয়ার ঘোষণা দেয়া। এটার কারন কি তা আমাদের ও অজানা।

সেলিম ভূইয়া’র সাথে কথা বললে ঘটনার বিষয়ে তিনি বলেন পানি দেয়ার ক্ষেত্রে আমার কোন নিষেধ নাই তবে কাজী মহসিন এর উত্তেজিত কথা ও অশোভনীয় আচরনে আমি রাগান্বিত হয়ে কমিটির উপদেষ্টা হতে নাম বাদ দিয়ে কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লার নাম ঘোষণা দিয়েছি।তবে আমি কোন মারধোর বা ভাংচুর করিনি। বরং তাদের দ্বারা আমরা নির্যাতিত।

এলাকাসীর সাথে এ বিষয়ে কথা বললে অনেকে বলেন সেলিম ভূইয়া ও শামীম এরা সামাজিক লোক নয়। এদের মধ্যে মানবতা নেই। ইদানীং কিছু টাকা হওয়ায় তারা কাউকে মানুষ মনে করে না।

কাজী মহসিন এর বিষয়ে জানতে চাইলে এলাকাবাসী বলেন, মহসিন একজন সমাজ সেবক, ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদ। তিনি সর্বদা এলাকাবাসীর কল্যাণে এগিয়ে আসে। আমরা কোন দ্বন্ধ বা বিরোধিতা চাইনা।

বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষকে উপস্থিত রেখে স্হানীয় কাউন্সিল রুহুল আমিন মোল্লা মিমাংসার জন্য বসবেন বলে আমরা জানি।আমরা এলাকার শান্তি ও মসজিদের উন্নয়ন চাই কোন সংমঘাত নয়।

সর্বশেষ - রাজনীতি