শনিবার , ২৭ এপ্রিল ২০২৪ | ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. ! Без рубрики
  2. অন্যান্য
  3. অপরাধ
  4. আমাদের পরিবার
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. দেশজুড়ে
  8. ধর্ম
  9. ফিচার
  10. বাণিজ্য
  11. বাংলাদেশ
  12. বিনোদন
  13. বিশ্ব
  14. ভিডিও
  15. মুন্সীগঞ্জ

গরমে সবজির বাজারে উত্তাপ, কমেছে ব্রয়লার মুরগীর দাম

প্রতিবেদক
admin
এপ্রিল ২৭, ২০২৪ ৭:২০ অপরাহ্ণ

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে হিমশিম খাচ্ছে খেটে-খাওয়া মানুষ। ঈদ পরবর্তী সময়ে বাজারে বৃদ্ধি পেয়েছে নানা ধরনের সবজির দাম। অপরদিকে, কিছুদিন পূর্বে চড়াও মূল্যে মুরগী বিক্রি হলেও, বাজারে কমতে শুরু করেছে দাম। এখন বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগী পাওয়া যাচ্ছে ২১০ টাকায়।

শনিবার(২৭ এপ্রিল) নগরীর দ্বিগুবাবুর বাজারে সরেজমিনে ঘুরে এরকম তথ্য জানা যায়।

সরেজমিনে সবজির বাজার ঘুরে জানা যায়, গত একসপ্তাহের ব্যবধানে বাজারে সবজির দাম বেড়েছে ১০-২০ টাকা। বর্তমানে বাজারে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৪৬ টাকায়, পেঁয়াজ ৫৬ টাকা, টমেটো ৩০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, বেগুন ৪০ টাকা, করলা ৫০ টাকা, ঝিঙ্গা ৫০ টাকা, কহি ৫০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ৫০ টাকা, মরিচ ৪০ টাকা, লেবু প্রতি হালি ২০-৩০ টাকা।

গত সপ্তাহে বাজারে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হয়েছিল ৪৬ টাকায়, পেঁয়াজ ৫৬ টাকা, টমেটো ৩০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, বেগুন ৩০ টাকা, করলা ৪০ টাকা, ঝিঙ্গা ৩০ টাকা, কহি ৪০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ৩০ টাকা, মরিচ ৪০ টাকা, লেবু প্রতি হালি ৩০ টাকা।

সরেজমিনে মাছের বাজার ঘুরে জানা যায়, তীব্র তাপদাহে বাজারে ক্রেতাদের চাপ কমেছে সে সাথে কমেছে কমেছে মাছের দাম। গত একসপ্তাহের ব্যবধানে বাজারে মাছের দাম কমেছে ৫০-৮০ টাকা। এখন বাজারে প্রতি কেজি ইলিশ মাছ ৭০০-১৪০০ টাকা, আকারভেদে শিং মাছ ৪০০-৭০০ টাকা, রুই মাছ ২৮০-৪৫০ টাকা, মাগুর মাছ ৬০০-৯০০ টাকা, পাঙ্গাস ১৮০-২০০ টাকা, চিংড়ি ৭০০-১২০০, বোয়াল ৪০০-৯০০ টাকা, কাতলা ৩০০-৬০০, তেলাপিয়া ২০০ থেকে ২২০ টাকা, কৈ মাছ ২৫০-৪০০ টাকা।

সরেজমিনে মাংসের বাজার ঘুরে জানা যায়, বাজারে কমতে শুরু করেছে মাংসের দাম। গত সপ্তাহে তুলনায় এ সপ্তাহে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে মুরগীর বাজারে। বর্তমান বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগী ২১০ টাকা, কক মুরগী ৩৬০ টাকা, লেয়ার লাল মুরগী ৩০০ টাকা, লেয়ার সাদা মুরগী ২৯০ টাকা, প্যারেন্ট খাসি মুরগী ৩৭০ টাকা ও প্যারেন্ট খাসি মোরগ ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া গরুর মাংস প্রতি কেজি ৭৮০ টাকা, খাসি ১১০০ টাকা ও বকরি ১০০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

দ্বিগুবাবুর বাজারে সবজি বিক্রেতা আ. মান্নান জানান, তাপপ্রবাহের কারণে কৃষকদের সবজি নষ্ট হচ্ছে। এছাড়া বারবার সেচ দেয়ার কারণে খরচও বৃদ্ধি পেয়েছে। এজন্য আমাদের বাড়তি দামে সবজি কিনে বিক্রি করতে হচ্ছে।

বাজারে আসা ক্রেতা আরমান হোসেন জানান, বাজারে সকল পণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী। নানান অজুহাতে ব্যবসায়ীরা হুট-হাট করে নিত্যপণ্যের দাম বাড়িয়ে দেয়। এখন গরমের অজুহাতে সরবরাহের ঘাটতি রয়েছে দাবি তাদের। ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটের কবলে পড়ে নাজেহাল সাধারণ মানুষ।

সর্বশেষ - রাজনীতি