সোমবার, ১৪ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,
৩রা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি, বিকাল ৩:০৫
শিরোনামঃ
alordhara24 logo অভিনেত্রী পরীমণিকে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা alordhara24 logo নাসিম ওসমান এর নামে ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতুর নামকরণ; শহরে বিশাল শোডাউন।  alordhara24 logo গলায় ফাস লাগিয়ে গার্মেন্টস শ্রমিকের আত্মহত্যা alordhara24 logo সোনারগাঁয়ে দরিদ্র মানুষের চিকিৎসায় ফ্রী মেডিক্যাল ক‍্যাম্পের আয়োজন alordhara24 logo নারায়ণগঞ্জে ভোকেশনাল খেলার মাঠ রক্ষায় মানববন্ধন alordhara24 logo শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রীর মন্তব্য alordhara24 logo কুষ্টিয়ায় প্রকাশ্যে শিশুসহ পরিবারের তিনজনকে গুলি করে হত্যা alordhara24 logo আশুলিয়ায় পাওনা বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ alordhara24 logo নেতানিয়াহুর যুগ কি শেষ হতে চেলেছে অবশেষে ? alordhara24 logo বঙ্গবন্ধু সেতুতে বাসের ধাক্কায় ট্রাক্টরে আগুন ধরে দুজন নিহত alordhara24 logo বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারী বহিরাগত শ্রমিক নেতাদের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে মানববন্ধনে জনজোয়ার alordhara24 logo ক্ষমতা পাগল বিএনপি: ওবায়দুল কাদের alordhara24 logo বেতনের দাবীতে আদমজী ইপিজেড গার্মেন্টস শ্রমিকদের আন্দোলন alordhara24 logo যুবককে কুপিয়ে হত্যার পর গণপিটুনিতে খুনি নিহত alordhara24 logo রূপগঞ্জে পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় সন্তানকে নিয়ে স্ত্রীর পলায়ন alordhara24 logo টেকনাফে অজ্ঞাতনারীসহ ২ শিশুর লাশ উদ্ধার alordhara24 logo ‘রিভেঞ্জ‘ নিয়ে আসছেন রোশান alordhara24 logo বাংলাদেশের নাটকের ইতিহাসে অনন্য রেকর্ড গড়লো অপুর্ব alordhara24 logo ২০ওভারের খেলায় ১০ওভারে শেষ! alordhara24 logo অ্যাম্বুলেন্সের ধাক্কায় উড়ে গেল মোটরসাইকেল,নিহত ২ alordhara24 logo খালেদা জিয়ার লিভার ট্রান্সপ্লান্টেশনের সুপারিশ চিকিৎসকদের alordhara24 logo সারাদেশে ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা alordhara24 logo সিদ্ধিরগঞ্জে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে গার্মেন্টকর্মীর অর্থ-স্বর্ণালঙ্কার লুট alordhara24 logo অ্যাম্বুলেন্স-মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২ alordhara24 logo মেয়রের নেতৃত্বে যৌথ আলোচনায় ভোকেশনাল মাঠে ভবন নির্মাণের কাজ আবারও বন্ধ alordhara24 logo সোনারগাঁয়ে বৈধ-গ‍্যাস সংযোগ দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল alordhara24 logo শিশুটি তার এলাকার নাম বলতে পারছে না alordhara24 logo রূদ্ধশ্বাস ফাইনাল ম্যাচে শম্ভুপুরাকে ৩-১ গোলে উড়িয়ে সনমান্দি চ্যাম্পিয়ন alordhara24 logo বাকপ্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক ০১ alordhara24 logo টাঙ্গাইলে যৌতুক ও স্ত্রী নির্যাতন মামলায় শিক্ষক স্বামী গ্রেফতার alordhara24 logo এবার বাইডেন-পুতিন বৈঠক; হবে সুইজারল্যান্ডে alordhara24 logo জাতীয় মেধাবী আনাসের জীবনের মূল্য কি ৩০ লক্ষই থাকবে? alordhara24 logo দক্ষিণাঞ্চলে বেশি করে সাইলো নির্মাণ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর alordhara24 logo ইন্টারনেট ব্যবসায় নিয়ে চলছে ছেলেখেলা alordhara24 logo গাইবান্ধায় কৃষকলীগ নেতার বাড়ি থেকে টাইম বোমা উদ্ধার alordhara24 logo তিতাস গ‍্যাস কোন প্রকার নোটিশ ছাড়াই সোনারগাঁয়ে গ‍্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন alordhara24 logo বিয়ের দিন প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন alordhara24 logo সোনারগাঁয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা পরিচয়ে ভূয়া ৪ জনকে আটক alordhara24 logo মুক্তারপুর সেতুর রেলিং ভেঙে রাস্তায় পড়লো কাভার্ডভ্যান; আহত ৪ alordhara24 logo সারাদেশে বৃষ্টি থাকবে আরও তিন দিন alordhara24 logo কর্ণফুলীতে তলীয়ে গেল জাহাজ alordhara24 logo মাতুয়াইল শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটে রোগীদের ভোগান্তির অভিযোগ alordhara24 logo রাজধানীতে ব্যবসায়ীর রহস্যজনক মৃত্যু alordhara24 logo মাদকের বিরুদ্ধে যু্দ্ধ ঘোষণা ডিএমপির alordhara24 logo গাজীপুরে পোশাক কারখানাতে আগুন alordhara24 logo ভারতের উত্তরপ্রদেশে বাস দুর্ঘটনায় নিহত ১৭, আহত ৫ alordhara24 logo মুজিব জন্মশত ও ১৭ মে জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও বৃক্ষরোপন কর্মসুচি alordhara24 logo খেলার মাঠ রক্ষায় মেয়র আইভি’র হস্তক্ষেপ কামনায় আবেদন alordhara24 logo চলাচলের রাস্তা না রেখে পাইকপাড়ায় মসজিদ পুন:নির্মাণের অভিযোগ, ১৪৪ ধারা জারি alordhara24 logo মুন্সীগঞ্জ জেলার জাজিরা উপজেলার সৈদয়দপুরে জোরপূর্বক জমি দখলের ফন্দি
কিশোর অপরাধের নেপথ্যে সামাজিক ও পারিবারিক দূর্বলতাই মূল কারণ : মো. শফিকুল ইসলাম আরজু
কিশোর অপরাধের নেপথ্যে সামাজিক ও পারিবারিক দূর্বলতাই মূল কারণ : মো. শফিকুল ইসলাম আরজু

কিশোর অপরাধের নেপথ্যে সামাজিক ও পারিবারিক দূর্বলতাই মূল কারণ : মো. শফিকুল ইসলাম আরজু

আলোরধারা ডেস্ক : 

ইদানিং প্রায়সই শোনা যাচ্ছে কিশোর অপরাধের নানান ঘটনা। কি কারণে দিন দিন কিশোর গ্যাং তৈরি হচ্ছে আর কেনই বা সংঘবদ্ধ কিশোর’রা বিভিন্ন অপরাধ মূলক কাজে জড়িয়ে পড়ছে তা নিয়ে সমাজ বিজ্ঞানীরাও আজ চিন্তিত। কিশোররা আজ কেবল হাতাহাতিতেই সীমাবদ্ধ নয় তারা এখন পরিকল্পিত হত্যার সাথেও জড়িয়ে পড়ছে। অপরাধমূলক কাজে এদের উৎসাহিত করছে কারা আর কেনই বা অপরাধমূলক কাজ থেকে কিশোরদের ফেরানো যাচ্ছে না? কীভাবে কিশোররা পরিবার-সমাজ ও আইনের চোখ ফাঁকি দিয়ে দিন দিন ভয়ংকর রূপে আবির্ভূত হচ্ছে। এর জন্য দায়ী কে? সমাজ, পরিবার না কি আইনি দূর্বলতা। এই সব প্রশ্নই এখন ঘুরে ফিরে বেড়াচ্ছে মানুষের মুখে মুখে।

প্রতিটি পরিবারের স্বপ্ন থাকে সন্তানকে নিয়ে গর্ব করার, প্রত্যাশা থাকে সন্তানটি একদিন বংশের নাম উজ্জ্বল করবে। সামাজের অপরাপর অংশের মানুষের আঙ্খাক্ষা থাকে ছেলেটি সমাজের জন্য কাজ করে এলাকার সুনাম বয়ে আনবে। আর এ ধরণের প্রত্যাশা নিয়েই পরষ্পর সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু বর্তমানে দেখা যাচ্ছে তার উল্টো। সন্তানের অপরাধের কারণে বহু পিতাকে মাথা নিচু করে চলতে হচ্ছে। আর তারকা চিহ্নিত কুখ্যাত অপরাধী হলে শুধু ঐ কিশোরের পিতা নয় গোটা গ্রামবাসীকেই মাথা নিচু করে চলতে হয়।

আমাদের সকলেরই উচিৎ কিশোর যুবকদেরকে খারাপ কাজ থেকে নিরুসাহিত করে ভাল কাজের দিকে ফিরিয়ে। তাদেরকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনার দ্বায়িত্ব একক ভাবে পরিবার কিংবা প্রশাসনের নয়, বরং আমরা নৈতিক দ্বয়িত্ব হিসাবে যদি প্রত্যেকেই এগিয়ে আসি তাহলেই ওদেরকে ভাল পথে ফিরিয়ে আনা সম্ভব।

আমাদের প্রত্যেকের উচিৎ সন্তানদের আচরণ ও গতি প্রকৃতির দিকে নজর দেয়া। সেই সাথে ওদের বন্ধু কারা তা চিহ্নিত করা। ওদের অর্থনৈতিক আয়ের উৎস কী? ওদের পিছনে কারা সাহস যোগাচ্ছে কারা ওদের নিয়ন্ত্রণ করছে?

সমাজ বিজ্ঞানীদের মতে লেখাপড়ার প্রতি নিরুসাহিত হওয়া, কাজে কর্মে অনীহা, সময় অসময়ে বাহিরে যাওয়া, এমন কী রাতে বাড়ি না ফেরা, বৈরী আচরণ, স্নেহ ও সম্মান সূচক আচরণ না করা, উগ্র মেজাজ এসবই বকে যাওয়া একজন কিশোর বা যুবকের লক্ষণ বলে ধরে নেয়া যায়। হয়তো এই দিকগুলো যদি আমরা পরখ করতে পারি তাহলেই অতি সহজে বুঝতে পারবো আমাদের সন্তান অপরাধের সাথে জড়িয়ে যাচ্ছে কিনা। আর এই প্রাথমিক কালেই যদি তড়িৎ ব্যবস্থা নেয়া যায় তবেই তাকে সেই অপরাধের পথ থেকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে; নয়তো সারা জীবনই পস্তাতে হয়।

কখনো কখনো এমনও তথ্য পাওয়া যায় যে, সুবিধাবাদী কিছু কিছু নেতা নিজের প্রভাব বিস্তারের জন্য কিশোরদেরকে অপরাধ মূলক কাজে ব্যবহার করে থাকে। অধিক মুনাফা লোভী ঐসব অপরাধী ব্যাক্তি কিশোরদের দিয়ে বিভিন্ন ভাবে সুকৌশলে মাদক বিক্রির কাজে নিয়োজিত করছে। সেই সাথে তাদের দিয়ে চাঁদাবাজি, ছিনতাই, জবরদখলসহ হত্যার মতো ঘৃণীত অপরাধমূলক কাজও করিয়ে নিচ্ছে।

এতদিন রাস্তার মোড়ে, অলিতে-গলিতে কিংবা পরিত্যাক্ত কোন ভবনে তাদের বিচরণ লক্ষ্য করা গেলেও সম্প্রতি নবরূপে কিশোররা বেপরোয়া স্টাইলে মটর সাইকেল, গাড়ি কিংবা বাইসাইকেলে দশ থেকে ত্রিশ জনের মতো দল করে দিনে কিংবা রাতে উচ্চ হর্ণ বাজিয়ে চলাফেরা করে থাকে। তাদের মধ্যে অনেকেই অপ্রাপ্ত বয়স্ক এমন কী ড্রাইভিং লাইন্সহীন। ওরা কী ভাবে প্রশাসনের চোখের সামনে এমন বেপরোয়া ভাবে চলাচল করছে? কিশোরদের এ ধরণের সংঘবদ্ধ আড্ডা ও অপরাধ মূলক কাজের প্রতি নজর দেয়া গোয়েন্দা সংস্থার যেমন দায়িত্ব তেমনি সমাজের জনপ্রতিনিধিদেরও সামাজিক শান্তি শৃঙ্খলার জন্য বিশেষ ভূমিকা নেয়ার দরকার। কিন্তু বাস্তবে এ বিষয়ে তাদের রয়েছে বিস্তর উদাসীনতা। একজন অপরাধি আইনের ফাকফোকর দিয়ে কৌশলে জামিনে বেড়িয়ে এসে আবারও অপরাধের সাথে জড়িয়ে পড়ছে।

কিন্তু সেই অপরাধীর প্রতি যদি পুলিশ প্রশাসনের নজরদারি থাকতো। তাহলে সে হয়তো বেরিয়ে এলেও অপরাধের সাথে আর জড়িত হবার চিন্তাই করতো না। পারিবারিকভাবে যদি সন্তানের অপরাধ মূলক কাজে জড়িত হবার কথা শুনে প্রথমিক পর্যায়েই বাধা প্রয়োগ করতো তাহলে হয়তো কিশোর অপরাধের প্রবণতা সমাজ থেকে কমে যেত।

অভিজ্ঞ মহলের কেউ কেউ কিশোর অপরাধের সংখ্যা বৃদ্ধির মূল কারন বলে মনে করেন সামাজিক দূর্বলতাকে, তাদের মতে সমাজিক বিচার ব্যবস্থা আজ অপরাধীদের নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে। আর তাই অপরাধীদের প্রতিরোধ করা থেকে অনেকে আজ
অপরাধীদের ভয়ে নিজেদের গুটিয়ে নিয়েছেন। সামাজিক ভাবে একজন অপরাধী হলেও আইনের চোখে সাক্ষী-প্রমাণ না দিতে পারায় অপরাধী ব্যাক্তিটি হয়ে উঠে শক্তিধর।

তাই আমাদের সমাজ ব্যবস্থা, রাষ্ট্রিয় আইন ও পারিবারিক নিয়ন্ত্রণ সময় উপযোগী করতে হবে। অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। প্রতিবাদ করতে হবে।মানবিক দায়বদ্ধতা থেকেই সামাজিক অবক্ষয় দুর করতে হবে। সমাজ সুন্দর-সুশৃংখল হলে কোন সন্তান অপরাধী না হয়ে হবে সমাজ ও রাষ্ট্রের গর্বিত সন্তান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seven − four =

এ বিভাগের আরও খবর...।